এক ঝাঁক আলো

Posted: September 10, 2014 in Bengali, Personal, Poetry, Relationships

ধার দিয়ে বয়ে চলা মসৃণ নদী, তার ধারে চিরকাল একা সেই ঝাউবন, মৌতাতলাগা রোদ্দুর,

মেঘ করেছিল সারারাত, এই চোরাবালি ঢেউ খুজে ফেরা নদীর বুকে বৃষ্টিও হয়েছে সারারাত,

নরম রোদ্দুর তাই আজ শান্ত চোখেমুখে।

সেই কোন ছোটবেলায়, অমলকান্তি যখন রোদ্দুর হতে চেয়ে খেলে বেড়াতো চৌধুরীদের শামিয়ানায়

যখন তরলিত চন্দ্রিকা বয়ে যেতো ফাগুনের আগুন জ্বালাবুকে, বড় হতে চাওয়ার কি নিঠুর পরিহাস-

হেসে চলে যেতো গাদা গাদা বই খাতা আর রাতজাগা ঠাকুরমার ঝুলির ভিতর।

রাত তো এখনও আছে, এখনও তো রাতের রাস্তা নিয়নের জলে স্নান করে,

পসারিণী বেআইনি দেহ বেচে খায়, এখনও সেই পাগল কোন কবি, সময় ভুল করে সারারাত সুর করে ডাকে,

আর এখনও রাস্তার ধারে পড়ে থাকে দেহ, জ্যান্ত, না খাওয়া পাকস্থলী আকাশের দিকে চেয়ে,

আর এখনও সেই জ্যান্ত মৃত দেহটার পাশে, ভিড় করে থাকে আলো।

শুধু বদলে যায় হাজারো চরিত্র, আজ কাল পরশু, এর ভিড়ে চাপা পড়ে যায় জীবন,

যে কথা বাঁচার ছিল, মৃত হয়ে যায় সব।

সময় বড় অদ্ভুত, ছেলেবেলা কখন যেন চলে গিয়ে বড় হয়ে যায় চারপাশ, নাগপাশ বুঝে ওঠে মন, শরীর,

চাওয়ার বিষয় কখন বই ছেড়ে ওঠেনা আকাশের আলো হয়ে,

মাঠে মাঠে খেলে বেড়ানোর সময়, হঠাৎ কোনও সকালে বদলে যায় ভাত, রুটি আর সময় কাটানোর আন্দোলনে,

রঙ আসে দেহে, কখনও লাল, কখনও সবুজ, একরাশ ঘেন্না, আর সেই ঘেন্না চলতে থাকে

আবহমান, আবহকাল, আলোর পথ বন্ধ করে,

ভাললাগা প্রেম ভাষা বদল করে, কোনদিন এক কফিহাউসের কোণে ছুঁড়ে ফেলে কবিতার খাতা

হাতে তুলে নেয় লাঠি, মুখে ভরে নেয় ভাষা, আর এই চাষাদের দেশে রঙ দিয়ে হয় জীবন লেখা,

সারাটা দিনের শেষে, আলো সব কালো হয়ে আসে

সারাটা জগত ঘুমিয়ে থাকে, সব ওই জ্যান্ত মৃত দেহটার মত।

 

দেবরাজ

09.09.2014

Delhi

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s